Home / on-scroll / আনুষ্ঠানিকতা শেষে আজ হাসপাতাল বদল হচ্ছে খাদিজার

আনুষ্ঠানিকতা শেষে আজ হাসপাতাল বদল হচ্ছে খাদিজার

a505সিলেটের কলেজ ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে স্কয়ার হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়ার কথা গত শনিবারই জানিয়ে দিয়েছিল স্কয়ার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বাকি ছিল আনুষ্ঠানিকতা। গতকাল রবিবার সেই আনুষ্ঠানিকতা ওই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সম্পন্ন করে ঠিকভাবেই। তবু কাল ওই হাসপাতাল ছেড়ে যাওয়া হলো না খাদিজার। কারণ খাদিজার পরবর্তী গন্তব্য—সিআরপিতে জটিলতা ছিল। তবে সেখানকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাটুকু হয়ে গেলেই আজ সোমবার খাদিজা স্কয়ার থেকে বিদায় নেবেন বলে জানিয়েছে স্কয়ার কর্তৃপক্ষ।

স্কয়ার হাসপাতালের পরিচালক (মেডিক্যাল সার্ভিসেস) ডা. মীর্জা নাজিমউদ্দিন গতকাল সন্ধ্যায় বলেন, ‘খাদিজাকে আমরা অফিশিয়ালি রিলিজ দিয়ে দিয়েছি। কিন্তু সে বাড়ি যাচ্ছে না, যাবে সিআরপিতে। সেখানে তার দীর্ঘমেয়াদি কিছু ফিজিওথেরাপি দিতে হবে। পরিবারের লোকজন সিআরপিতে যোগাযোগ করেছিল; কিন্তু সিআরপিতে বিছানা খালি না পাওয়ায় যাওয়া হয়নি। তবে কাল (আজ সোমবার) এখান থেকে সিআরপিতে যাবে।’

ডা. মীর্জা নাজিমউদ্দিন গত শনিবার জানান, একজন সুস্থ-স্বাভাবিক মানুষের জিসিএস থাকে ১৫; খাদিজার এখন সেটাই আছে। তাঁর বাঁ পাশ অবশ থাকলেও তিনি এখন নিজে খেতে পারেন, কথা বলতে পারেন, পড়তে পারেন, সব লিখতে পারেন, ধরে ধরে হাঁটতেও পারেন। তাই হাসপাতালের মেডিক্যাল বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুসারে খাদিজাকে এখন ডিসচার্জ দেওয়া হচ্ছে। তাঁর বাকি সমস্যাটুকু সমাধানের জন্য ভালো কোথাও রিহ্যাব ফিজিওথেরাপি দেওয়া দরকার।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, গত ৩ অক্টোবর সিলেটে খাদিজা দুর্বৃত্তের এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাতে মারাত্মক জখম হন। ৪ অক্টোবর তাঁকে স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তখন তাঁর জিসিএস ছিল মাত্র ৫। সম্পূর্ণ অচেতন ছিলেন তিনি। তাঁর বাঁচার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ ছিল। মাথার খুলি ছিল বিক্ষিপ্তভাবে থেঁতলানো। ব্রেনের অন্যান্য অংশ ছিল গুরুতরভাবে আক্রান্ত এবং তা স্বাভাবিক মিডলাইন থেকে সরে গিয়েছিল। পরে কয়েক দফা অস্ত্রোপচার করা হয়। মস্তিকের হাড় পুনঃস্থাপন করা হয় এবং হাতের জখম ঠিক করা হয়।

Check Also

হাসপাতালে টাকা দিতে না পারায় খোলা স্থানে সন্তান প্রসব

হাসপাতাল চত্বরে প্রসব বেদনায় চিৎকার করছেন এই নারী। অনেকেই দেখছেন, কিন্তু কেউ এগিয়ে আসছেন না। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.