Home / on-scroll / আলুর দাম বেড়েছে কেজিতে ৬-৭ টাকা

আলুর দাম বেড়েছে কেজিতে ৬-৭ টাকা

a278রাজধানীর খুচরা বাজারে হিমাগারের আলুর দাম কেজিতে ছয় থেকে সাত টাকা বেড়েছে। সপ্তাহ দু-এক আগেও যে আলু প্রতি কেজি ২৫ থেকে ২৬ টাকায় কেনা যেত, এখন তা কিনতে ক্রেতাদের গুনতে হচ্ছে ৩০ থেকে ৩২ টাকা। ব্যবসায়ীরা বলছেন, মৌসুম শেষে সাধারণত আলুর দাম কিছুটা বাড়ে। এ বছর আগাম আলুর আবাদ বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় দাম একটু বেশি হারে বেড়েছে।
এদিকে বাজারে পেঁয়াজ, আদা ও কয়েকটি সবজির দাম কমেছে। দর পড়ে গেছে কাঁচা মরিচের। তবে সার্বিকভাবে সবজির বাজার এখনো চড়া। বেশির ভাগ সবজির দাম এখনো প্রতি কেজি ৫০ টাকার বেশি। অন্যান্য পণ্যের দামে তেমন কোনো হেরফের নেই।
রাজধানীর খুচরা বাজারগুলোতে গত সপ্তাহে হঠাৎ আলুর দাম বেশ বড় লাফ দেয়। পাইকারি বাজারে দাম বেড়েছে এর আগের সপ্তাহে। কারওয়ান বাজারের আলুর আড়তের ৪ নম্বর দোকানের বিক্রয়কর্মী মো. জুয়েল গতকাল শনিবার বলেন, দুই সপ্তাহ আগে প্রতি বস্তা (৮০ কেজি) আলুর দাম ছিল ১ হাজার ৩৫০ থেকে ১ হাজার ৪০০ টাকা। এখন তা ১ হাজার ৮০০ টাকার কাছাকাছি দরে বিক্রি হচ্ছে। এ হিসেবে আড়তে আলুর দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি প্রায় পাঁচ টাকা।
দাম বাড়ার কারণ জানতে চাইলে মো. জুয়েল বলেন, ‘আমরা শুনেছি, উত্তরবঙ্গে আলুর আগাম আবাদ বৃষ্টির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ কারণেই দাম বেড়েছে।’
মৌসুমের এ সময়ে বাজারে হিমাগারের আলু ও আগাম আবাদ হওয়া আলু বাজারে আসে। উত্তরবঙ্গের মোস্তফা কোল্ড স্টোরের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বলেন, আলুর আগাম আবাদ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় ব্যবসায়ীরা হয়তো ভাবছেন এ বছর আগাম আলু পুরোদমে বাজারে আসতে দেরি হবে। এতে তাঁরা হিমাগারে রাখা পুরোনো আলু বাজারে ছাড়ছেন ধীরগতিতে। তিনি বলেন, এখন বাজারে সব ধরনের সবজির দাম বেশি। অন্যান্য সবজির দাম বেশি থাকলে আলুর দামও কিছুটা বাড়ে।
কিছুদিন আগে থেকে বাজারে নতুন আলু আসতে শুরু করেছে। বিভিন্ন বাজারে প্রথম দিকে এ আলু ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। এখন অবশ্য দাম কমে ৮০ টাকায় নেমেছে।
নতুন আলুর মতো কমেছে শীতের সবজি শিম, ফুলকপি ও বাঁধাকপির দাম। প্রতি কেজি শিম এখন ৬০ থেকে ৭০ টাকায় মিলছে, গত সপ্তাহে তা ৮০ টাকার বেশি ছিল। বেশ বড় আকারের ফুলকপি এখন প্রতিটি ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, যা গত সপ্তাহে ৪০ থেকে ৫০ টাকা ছিল। গত সপ্তাহে ছোট বাঁধাকপি ২৫ থেকে ৩০ টাকায় মিলত, এখন একই দাম দিয়ে আরেকটু বড় আকারের বাঁধাকপি কেনা যাচ্ছে। অন্যান্য সবজির দাম প্রতি কেজি ৫০ থেকে ৭০ টাকা। এর কমে আছে কাঁচা পেঁপে, প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০-৩৫ টাকা।
গত সপ্তাহে কারওয়ান বাজার আড়তে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ৭০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। গতকাল আড়তের খুচরা বিক্রেতা তোতা মিয়া প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ৪০ টাকায় বিক্রি করছিলেন। তিনি বলেন, তিনি নিজে কিনেছেন ৩০ টাকা কেজি দরে।
বিভিন্ন বাজারে দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৩৫-৪০ টাকা, ভারতীয় পেঁয়াজ ২৫ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কারওয়ান বাজার আড়তে দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি ২৮ থেকে ৩২ টাকা, ভারতীয় পেঁয়াজ ১৮ থেকে ২০ টাকায় মিলছে। অন্যদিকে চীনা আদা প্রতি কেজি ৮০ থেকে ১০০ টাকা, দেশি আদা ১৪০ থেকে ১৬০ টাকায় মিলছে। আড়তের মসলা বিক্রেতা আনিসুর রহমান বলেন, মৌসুমের শেষ দিক হলেও পেঁয়াজের সরবরাহ বেশি। এতে দাম কেজিতে পাঁচ থেকে সাত টাকা কমে গেছে।
বাজারে ব্রয়লার মুরগি প্রতি কেজি ১৩০ থেকে ১৪০ টাকা, গরুর মাংস প্রতি কেজি ৪৩০ থেকে ৪৫০ টাকা এবং ডিম প্রতি হালি ৩২ থেকে ৩৪ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহে চাল, ডাল, আটা, ভোজ্যতেল ও চিনির দামে উল্লেখযোগ্য কোনো পরিবর্তন হয়নি।

Check Also

হাসপাতালে টাকা দিতে না পারায় খোলা স্থানে সন্তান প্রসব

হাসপাতাল চত্বরে প্রসব বেদনায় চিৎকার করছেন এই নারী। অনেকেই দেখছেন, কিন্তু কেউ এগিয়ে আসছেন না। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.