Home / আন্তর্জাতিক / ট্রাম্প হবেন আমেরিকার সবচেয়ে বেপরোয়া প্রেসিডেন্ট

ট্রাম্প হবেন আমেরিকার সবচেয়ে বেপরোয়া প্রেসিডেন্ট

a467নির্বাচিত হলে রিপাবলিকান দলের প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প হবেন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বেপরোয়া প্রেসিডেন্ট।

এক খোলা চিঠিতে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন রিপাবলিকান ৫০ জন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ।

যুক্তরষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত রিপাবলিকান দলের নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের খোলা চিঠিতে বলা হয়, ডোনাল্ড ট্রাম্প উন্মুক্ত বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্রের নৈতিক কর্তৃত্বকে দুর্বল করেছেন। ধর্মীয় সহিষ্ণুতা, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা, বিচার বিভাগের স্বাধীনতাসহ যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান, আইন এবং সংগঠনগুলো সম্পর্কে কোনো প্রাথমিক জ্ঞান ও বিশ্বাস নেই ট্রাম্পের।

খোলা চিঠিতে আরো বলা হয়, তাঁরা (স্বাক্ষরকারীরা) কেউ ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোট দেবেন না।

বিবিসির খবরে বলা হয়, খোলা চিঠিতে স্বাক্ষর করা রিপাবলিকান নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের মধ্যে আছেন মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইয়ের সাবেক পরিচালক মাইকেল হেডেন।

সিআইয়ের সাবেক এই পরিচালক বলেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের চরিত্র, মূল্যবোধ ও অভিজ্ঞতার অভাব আছে, যা একজন প্রেসিডেন্ট হতে প্রয়োজন।

ট্রাম্প বর্জনে রিপাবলিকান দলের অনেক প্রভাবশালী নেতার এগিয়ে আসার পর এমন খোলা চিঠি প্রকাশিত হলো। এই চিঠিতে এমন অনেক রিপাবলিকান নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ স্বাক্ষর করেছেন, যাঁরা গত মার্চের একই রকম একটি চিঠিতে স্বাক্ষর করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন।

দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা রিপাবলিকান পররাষ্ট্রনীতির বিরোধিতা করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। রিপাবলিকান দলের এই প্রার্থী যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাটোতে থাকার অঙ্গীকার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, নির্যাতনের পক্ষে সমর্থন জানিয়েছেন এবং দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানকে নিজস্ব প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নিতে বলেছেন।

রিপাবলিকান দলের নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের খোলা চিঠির জবাবে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, এটি ওয়াশিংটনের ব্যর্থ অভিজাতদের ক্ষমতা ধরে রাখার চেষ্টার একটি অংশ।

খোলা চিঠির প্রকাশের পর এক বিবৃতিতে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, দুনিয়ায় বিশৃঙ্খলার উত্তর খুঁজতে গেলে মার্কিন জনগণকে চিঠির নামগুলো দেখতে হবে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প আরো বলেন, এগিয়ে আসার জন্য তাঁদের (স্বাক্ষরকারীদের) ধন্যবাদ জানাই আমরা। দেশের সবাই জানছে বিশ্বকে ভয়ংকর স্থান বানানোর জন্য কারা দায়ী।’

Check Also

রাখাইন সমুদ্রবন্দরের ৭০ শতাংশ দখলে নিচ্ছে চীন

মিয়ানমারের রাখাইনে গভীর সমুদ্রবন্দরের ৭০ শতাংশ অংশীদারিত্ব নিচ্ছে চীন। কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ এই বন্দর বিষয়ে ইতোমধ্যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.