Home / জাতীয় / তিন দিনের টানা বর্ষণে থমকে পড়েছে ঢাকার নাগরিক জীবন

তিন দিনের টানা বর্ষণে থমকে পড়েছে ঢাকার নাগরিক জীবন

তিন দিনের টানা বর্ষণে ঢাকার নাগরিক জীবন থমকে পড়েছে। রাস্তাগুলোতে পানি জমে যাওয়ায় সাধারণের চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। আবহাওয়া দফতর বলছে, আরও একদিন এ পরিস্থিতি থাকবে। তবে আগামীকাল মধ্যভাগ থেকে আকাশ পরিষ্কার হতে শুরু করবে।

এদিকে প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে রাস্তার ভাঙন ও জলাবদ্ধতার কারণে নগরীতে চরম দুর্ভোগ দেখা দেয়। কিন্তু এবার ভরা গ্রীষ্মেই বৃষ্টি নামায় দুর্ভোগের পরিমাণ বেড়েছে। উন্নয়ন কাজের সঙ্গে জড়িতরা বলছেন, বর্ষার আগেই কাজ শেষ করার পরিকল্পনা করা হলেও গ্রীষ্মে বর্ষা নামায় একটু সমস্যা হচ্ছে।সোমবার সকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, প্রধান সড়কগুলো চলাচলযোগ্য থাকলেও ভালো নেই পাড়ামহল্লার রাস্তাগুলো।

গত তিন দিন ধরে মেঘলা আকাশ, ভারী বর্ষণ থাকলেও সোমবার সকালে হঠাৎ অন্ধকার নেমে আসে। রাস্তাঘাটে অফিস ও স্কুলগামী মানুষ পড়েন বিপাকে। সকাল ১১টা পর্যন্ত হেডলাইট জ্বালিয়ে গাড়ি চলাচল করতে দেখা গেছে। রাজধানীর মালিবাগ-মৌচাক সড়কে হাটু পানি জমে তা মৌচাক মার্কেটে ঢুকে যাওয়ায় সকালে বেশিরভাগ দোকানই বন্ধ দেখা গেছে। রাজধানীর কাওরান বাজার এলাকায় পানি জমে যাওয়ায় গাড়ি থেমে থেমে চলছে। এখানেও লম্বা জায়গাজুড়ে ফুটপাতের কাজ চলায় এবং সেসব সরঞ্জাম ফুটপাতজুড়ে ফেলে রাখায় দুর্ভোগে পড়তে হয় কাওরান বাজারে নানা কাজে আসা মানুষদের।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, বাড্ডা-গুলশান লিংক রোডে দক্ষিণ দিকের ফুটপাত খোঁড়াখুঁড়ি করে ড্রেনেজ পাইপ লাইন স্থাপনের কাজ চলছে। এই এলাকায় গত তিন দিনে খানাখন্দে পানি জমে বিপজ্জনক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। বেশিরভাগ স্কুলেই শিক্ষার্থীদের যেতে দেখা যায়নি। বেসরকারি ব্যাংকে কর্মরত রোকনুজ্জামান বলেন, ‘আমরা এসবে অভ্যস্ত হয়ে যাচ্ছি। পানি জমবে, কাজে যেতে সমস্যা হবে, এরপর জমা পানিতে গন্ধ হবে, একসময় পানি সরে যাবে। নাগরিক অধিকার বলে একটি টার্ম আছে ,সেটি আমাদের নেই বললেই চলে।’

এদিকে আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন স্বাক্ষরিত এক সতর্ক বার্তায় বলা হয়েছে, আজ (সোমবার) সকাল ১০ টা থেকে পরবর্তী ১২ ঘণ্টা রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম অঞ্চলের ওপর দিয়ে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে কালবৈশাখী ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি ও বজ্রপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সমুদ্র বন্দরগুলোতে গত তিন দিন ধরে তিন নম্বর সতর্কসংকেত ও নদীবন্দরগুলোতে দুই নম্বর নৌ হুঁশিয়ারি সংকেতের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে।

আবহাওয়া কর্মকর্তা মো আব্দুল মান্নান বলেন, ‘বৃষ্টি আজকেও (সোমবার) থাকবে। মঙ্গলবার থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে শুরু করবে।আমাদের কাছে যে তথ্য-উপাত্ত আছে তা বিশ্লেষণ করে মনে হচ্ছে, পরশু অর্থাৎ ২৬ এপ্রিল থেকে আকাশ পরিষ্কার থাকবে।’ সোমবার সকাল ৬ টা থেকে ঢাকা শহরে ২২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে বলেও তিনি জানান।

Check Also

হাসপাতালে টাকা দিতে না পারায় খোলা স্থানে সন্তান প্রসব

হাসপাতাল চত্বরে প্রসব বেদনায় চিৎকার করছেন এই নারী। অনেকেই দেখছেন, কিন্তু কেউ এগিয়ে আসছেন না। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.