Home / শিক্ষা / পাঠ্যবই পরিমার্জনের দায়িত্ব শিক্ষাবিদদের হাতে

পাঠ্যবই পরিমার্জনের দায়িত্ব শিক্ষাবিদদের হাতে

মাধ্যমিক স্তরের পাঠ্যবই আরও পাঠযোগ্য, আকর্ষণীয় ও সহজ করতে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদদের সমন্বয়ে দু’টি কমিটি গঠন করে দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। একটি কমিটি ২০১২ সালের মাধ্যমিকের বিভিন্ন শ্রেণির পাঠ্যবই আরও পাঠযোগ্য করতে সুপারিশসহ প্রতিবেদন দেবে। আর নবম-দশম শ্রেণির নির্বাচিত কয়েকটি পাঠ্যপুস্তক পরিমার্জন করে সুখপাঠ্য, আকর্ষণীয় ও সহজ করতে অপর একটি কমিটিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ৪ জানুয়ারি কমিটি গঠন করে রোববার (০৮ জানুয়ারি) পৃথক আদেশ ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে। গত ২৫-২৭ নভেম্বর কক্সবাজারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মশালার সুপারিশ অনুযায়ী এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিশিষ্ট শিক্ষাবিদদের নিয়ে ওই কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছিল। দশ সদস্য করে প্রতিটি কমিটির সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করবেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব চৌধুরী মুফাদ আহমদ।

২০১২ সালের পাঠ্যক্রম পর্যালোচনা কমিটি অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মনজুর আহমদ, অধ্যক্ষ কাজী ফারুক আহমেদ, মতিঝিল সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক তানজীল আশ্রাফ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক হোসনে আরা বেগম, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, এনসিটিবি চেয়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র সাহা।

কমিটিতে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করবেন এনসিটিবি’র সদস্য (পাঠ্যক্রম) অধ্যাপক মো. মশিউজ্জামান। চাইলে কমিটি সদস্য হিসেবে আরও কাউকে কো-অপ্ট করতে পারবে ও মতামতের জন্য বিশেষজ্ঞদের আমন্ত্রণ জানাতে পারবে। এ কমিটিকে ৬০ কার্যদিবসের মধ্যে পাঠ্যক্রম পরিবর্তন, পরিমার্জন বিষয়ে সুপারিশ পেশ করতে বলা হয়েছে।

নবম-দশম শ্রেণির পাঠ্যবই পরিমার্জনের কমিটিতে
সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আখতারুজ্জামান, অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক এমএম আকাশ, বুয়েটের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক তাসলিমা বেগম, উদ্দীপন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এসএম ওয়াহিদুজ্জামান এবং এনসিটিবি’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র সাহা রয়েছেন।  কমিটির সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করবেন এনসিটিবির সদস্য (পাঠ্যপুস্তক) অধ্যাপক ইনামুল হক সিদ্দিকী।

এ কমিটি নবম ও দশম শ্রেণির পাঠ্যবই নির্বাচন করে একটি সময়াবদ্ধ কর্ম পরিকল্পনা তৈরি করবে, যাতে ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারির আগেই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিমার্জিত পাঠ্যপুস্তুক পৌঁছানো যায়।

Check Also

রুয়েট উপাচার্য ২৪ ঘণ্টা অবরুদ্ধ

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) উপাচার্য অধ্যাপক রফিকুল আলম বেগকে প্রায় ২৪ ঘণ্টা অবরুদ্ধ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.