Home / on-scroll / যুবসমাজকে মানব সম্পদে পরিণত করার কাজ চলছে: প্রধানমন্ত্রী

যুবসমাজকে মানব সম্পদে পরিণত করার কাজ চলছে: প্রধানমন্ত্রী

sheikh_hasina_111800gযুবসমাজকে মানবসম্পদে পরিণত করার কাজ চলছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা যুবকদেরকে প্রশিক্ষিত করে গড়ে তোলার পাশাপাশি বিনা-জামানতে লোন দেয়ার ব্যবস্থা করেছি। এ লক্ষ্যে আরও বেশ কিছু কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। দেশের যুব সমাজকে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করাই আমাদের সরকারের লক্ষ্য।

যুব প্রশিক্ষণ ভাতা বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন ৪০ টাকা করে ভাতা দেয়া হচ্ছে। এই টাকা খুবই কম। এই টাকায় আজকাল কিছুই পাওয়া যায় না। তিনি প্রশিক্ষণ ভাতা ১০০টাকা করার ঘোষণ দিয়ে যুব প্রতিমন্ত্রীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন।

আজ মঙ্গলবার (০১ নভেম্বর) জাতীয় যুব দিবস উপলক্ষে রাজধানীর ওসমানি স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত সম্মেলনে বক্তৃতা করছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

যুব সমাজকে সঠিক পথে পরিচালিত হওয়ার তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জঙ্গিবাদ ও মাদক থকে দূরে থাকতে হবে। মানুষ হত্যা করে কেউ কখনো বেহেশতে যেতে পারে না। মানুষ খুন কোনো ধর্মই সাপোর্ট করে না। কাজেই যুবকরা যাতে বিপথে না যান সে দিকে সবাইকে সচেষ্ট থাকতে হবে।

ইচ্ছা থাকলে যে অনেক কিছু করা যায় এই যুব উদ্যোক্তারাই তার প্রমাণ। প্রধানমন্ত্রী বলেন, যুব দিবসের পুরস্কারপ্রাপ্তদের উঠে আসার গল্প শুনে আমি অভিভূত হয়েছি। কাজেই মনে করি, আমাদের যুব সমাজের সৃষ্টিশীলতার কোনো তুলনা হয় না। এদের কারনেই বাংলাদেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে এবং এগিয়ে যাবে।

বঙ্গবন্ধুর কথা স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যুব সমাজের উদ্দেশে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, কাজ করো কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত হও। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের শিক্ষানীতিতে ভোকেশনাল শিক্ষাকে আমরা সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি। প্রশিক্ষণের পর যুবকরা যাতে বিনা জামানতে লোন নিতে পারেন সে ব্যবস্থা করে দিয়েছি। এছাড়া যারা বিদেশে যেতে চান তাদের জন্য প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক থেকে লোন দেয়ার ব্যবস্থা করেছি।

যুবকদের নানামুখী প্রকল্প হাতে নেয়ার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রশিক্ষিত কর্মীবাহিনীর প্রয়োজন। সে বিষয়টি মাথায় রেখে আমরা নানা প্রশিক্ষণ কর্মসূচি হাতে নিয়েছি।

ঝুঁকি নিয়ে যাতে আর কেউ বিদেশ পাড়ি না জমায় সে জন্য সবাইকে সচেষ্ট থাকার আহবান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা চাইনা আমাদের যুব সমাজ বিপথে যাক। বাবা-মায়ের কান্না আমরা আর দেখতে চাই না।

তিনি বলেন, আমাদের দেশেই এখন বড় বড় শিল্প কলকারখানা গড়ে উঠছে। সেখানেই বহু প্রশিক্ষিত লোক দরকার। সে বিষয়টি আমাদের মাথায় রেখে কাজ করতে হবে।

Check Also

হাসপাতালে টাকা দিতে না পারায় খোলা স্থানে সন্তান প্রসব

হাসপাতাল চত্বরে প্রসব বেদনায় চিৎকার করছেন এই নারী। অনেকেই দেখছেন, কিন্তু কেউ এগিয়ে আসছেন না। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.