Home / আন্তর্জাতিক / হিলারি সমর্থকদের আগুনে জ্বলছে আমেরিকা, চলছে সহিংসতা

হিলারি সমর্থকদের আগুনে জ্বলছে আমেরিকা, চলছে সহিংসতা

a444রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচনে জয়লাভ করার পর ডেমোক্রেট পার্টির প্রার্থী হিলারির নেতাকর্মীরা তা মেনে নিতে পারছেন না। শতশত ডেমোক্রেট পার্টির কর্মীরা ক্যালিফোর্নিয়া, সানফ্রান্সিসকো সহ বিভিন্ন শহরের রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ শুরু করেছেন। অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটছে।

ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন নির্বাচনের রায় মেনে নিলেও তার সমর্থকদের অনেকেই তা মেনে নিতে পারছেন না। হিলারি সমর্থক ছাত্ররা ক্যালিফোর্নিয়ার কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাস্তায় নেমে এসে বিক্ষোভ করছে। তারা শ্লোগান দিচ্ছে ট্রাম্প তাদের প্রেসিডেন্ট নন।

 

নির্বাচনে জয়লাভের পর তাৎক্ষণিক এক ভাষণে ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজেকে আমেরিকার সকল মানুষের প্রেসিডেন্ট হিসেবে উপস্থাপন করলেও হিলারির সমর্থকদের অনেকে তা মেনে নিতে পারছেন না। বিক্ষোভে তারা রাস্তায় নেমে এসেছেন। ভাংচুর করছেন। ফ্রান্সিসকো শহরে বাড়িঘরের জানালা ভাংচুর, রাস্তার বিন জড়ো করে অগ্নিসংযোগ করছে তারা।

a445অরেগন ইউনিভার্সিটির শতশত ছাত্র রাস্তায় নেমে এসে শ্লোগান দিচ্ছে, ‘ফা– ট্রাম্প’। ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নির্বাচনে বিজয়ী ঘোষণার পর তারা বিক্ষুব্ধ হয়ে রাস্তায় নেমে এসে বিক্ষোভ করতে শুরু করে। পুলিশ তাদের শান্ত হয়ে ঘরে ফিরে যাবার অনুরোধ করছে।

সারাই সিলভা নামে এক নারী তার টুইটারে পোস্ট দিয়ে বলেছেন, সানফ্রান্সিসকোর প্রায় সবজায়গায় দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়েছে। টুইটারের বরাত দিয়ে ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র বলছে, ট্রাম্পের বিজয় আমরা মেনে নেব না। আমরা চুপ করে বসে থাকব না।

এদিকে এধরনের বিক্ষোভ চলতে থাকলে তা হিলারি ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন অনেকে। হিলারি ক্লিনটন অরেগন ও ক্যালিফোর্নিয়ায় জয় পেলেও অন্যান্য স্থানে ট্রাম্পের সঙ্গে হেরে যান। হিলারির সমর্থকরা বিক্ষোভ শুরু করায় ট্রাম্প সমর্থকরা তাদেরকে অভিশপ্ত ও ভন্ড বলে অভিহিত করছে। ফ্লোরিডা, ওহাইহো ও নর্থ ক্যারোলিনার মত সুইং স্টেটগুলোয় ট্রাম্প জিতে যাওয়ায় হিলারির পরাজয় নিশ্চিত হয়ে গেছে।

নির্বাচনে জয়লাভের পর ডোনাল্ড ট্রাম্প তার বক্তব্যে হিলারির কাছ থেকে টেলিফোনে অভিনন্দন পাওয়ার কথা জানিয়ে বলেন, হিলারি দেশের জন্যে দীর্ঘদিন ধরে অনেক কঠোর পরিশ্রম করেছেন। এখন সময় এসেছে আমাদের জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে দেশের জন্যে একসঙ্গে কাজ করার।

Check Also

রাখাইন সমুদ্রবন্দরের ৭০ শতাংশ দখলে নিচ্ছে চীন

মিয়ানমারের রাখাইনে গভীর সমুদ্রবন্দরের ৭০ শতাংশ অংশীদারিত্ব নিচ্ছে চীন। কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ এই বন্দর বিষয়ে ইতোমধ্যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.