Home / জাতীয় / ৫৭ ইষ্টবেঙ্গল রেজিমেন্টকে পতাকা প্রদান সেনা প্রধানের

৫৭ ইষ্টবেঙ্গল রেজিমেন্টকে পতাকা প্রদান সেনা প্রধানের

a114সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক ৫৭ ইষ্টবেঙ্গল রেজিমেন্টকে পতাকা প্রদান করেন।

আজ মঙ্গলবার বিকালে আন্ত:বাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ রেজা-উল করিম শাম্মী এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

আজ রেজিমেন্টের কালার প্যারেড অনুষ্ঠান ঢাকা সেনানিবাসের ৫৭ রেজিমেন্টের প্রশিক্ষণ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে সেনাবাহিনী প্রধান মনোজ্ঞ কুচকাওয়াজ পরিদর্শন এবং অভিবাদন গ্রহণ করেন ও রেজিমেন্টাল কালার অর্থ্যাৎ রেজিমেন্টের পতাকা প্রদান করেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে সেনাপ্রধান অদম্য সাতান্ন’র রেজিমেন্টাল কালারের মান সমন্নুত রাখার জন্য ইউনিটের সকল সদস্যকে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার এবং সেনাবাহিনীর সেবায় আত্মোৎসর্গ করতে সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেন। এছাড়া তিনি কঠোর প্রশিক্ষণ ও অনুশীলনের মাধ্যমে সময়োপযোগী জ্ঞানার্জন ও পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির উপর জোর দেন। এর আগে সেনাবাহিনী প্রধান ৫৭ ইষ্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টে এসে পৌঁছালে ৪৬ স্বতন্ত্র পদাতিক ব্রিগেড কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মজিবুর রহমান তাকে স্বাগত জানান।

এই রেজিমেন্টাল কালার প্রদান অনুষ্ঠানের প্যারেড কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ৫৭ ইষ্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের অধিনায়ক লেফ্টেন্যান্ট কর্নেল মো. শফিউল আলম। সেনাবাহিনী প্রধানের নিকট থেকে রেজিমেন্টের পতাকা গ্রহণ করেন রেজিমেন্টের উপ-অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, সেনাবাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ ইউনিটের প্রাক্তন অফিসার, মাস্টার ওয়ারেন্ট অফিসাররা এবং অন্যান্য পদবীর সেনাসদস্যগণ বর্ণাঢ্য এ কুচকাওয়াজ প্রত্যক্ষ করেন।

উল্লেখ্য, অদম্য সাতান্ন ২০০৪ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি সদর দপ্তর ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের অধীনে ২২২ পদাতিক ব্রিগেডের তত্ত্বাবধানে সৈয়দপুর সেনানিবাসে আত্মপ্রকাশ করে। অত্র ইউনিট জাতীয় পর্যায়ে গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তেরাঁয় অপারেশন থান্ডার বোল্ড’সহ বিভিন্ন অপারেশনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে। “সৌম্য, শক্তি ও ক্ষিপ্রতা’’ এই মুলমন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে অদম্য মনোবল নিয়ে ৫৭ ইষ্ট বেঙ্গলের জয়যাত্রা চলমান।

Check Also

হাসপাতালে টাকা দিতে না পারায় খোলা স্থানে সন্তান প্রসব

হাসপাতাল চত্বরে প্রসব বেদনায় চিৎকার করছেন এই নারী। অনেকেই দেখছেন, কিন্তু কেউ এগিয়ে আসছেন না। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.